পাকিস্তান মানেই বিতর্ক, এবার যেন না হয়

আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২০:৫৯

ইংল্যান্ডের উদ্দেশে সবার আগে দেশ ছেড়েছে পাকিস্তান দল। ৩০ মে বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে সরফরাজ আহমেদের দল। সব মিলিয়ে প্রায় দুই মাসের কাছাকাছি সময় ইংল্যান্ডে থাকতে হবে পাকিস্তান দলকে। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) এ নিয়ে কিছুটা শঙ্কিতও। সেটি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অতীত কর্মকাণ্ডের জন্য। সফরে গিয়ে দলটির ক্রিকেটারদের নানা বিতর্কে জড়ানোর নজির আছে তো তাই। এই ধরুন, স্পট ফিক্সিং, বিনা অনুমতিতে হোটেল ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়া ইত্যাদি।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ট্রিবিউন জানিয়েছে, দলের সবাইকে সতর্কতা ও নজরদারির মধ্যে থাকার নির্দেশ পিসিবি। ক্রিকেটারদের বিতর্ক থেকে দূরে রাখতেই বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত। অপরিচিত কারও সঙ্গে দেখা করা এবং তাঁদের সঙ্গে উপহার আদান-প্রদান এড়িয়ে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ক্রিকেটারদের। এ ছাড়া দলের ম্যানেজার তালাত আলীর অনুমতি নিয়ে হোটেলের বাইরে যেতে বলা হয়েছে তাঁদের। এ জন্য দলের নিরাপত্তা কর্মকর্তারও অনুমতি লাগবে। একা বাইরে না ঘুরে কয়েকজন মিলে ঘোরার নির্দেশও দিয়েছে পিসিবি।

ট্রিবিউনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তান খেলোয়াড়দের নিয়ে নেতিবাচক খবর প্রকাশের ঝোঁক রয়েছে ইংলিশ সংবাদমাধ্যমের। তাই ক্রিকেটারদের এ নিয়ে সতর্ক থাকার এবং অপ্রয়োজনীয় কাজকর্ম এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে পিসিবি। ২০১০ সালে ইংল্যান্ডে মোহাম্মদ আমিরের স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়ানোর ঘটনা এখনো অনেকে ভুলতে পারেনি। এ ছাড়াও গত বছর লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের ‘স্মার্ট ঘড়ি’ পড়া নিয়েও বিতর্ক হয়েছিল। আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী সংস্থা (আকসু) বাবর আজম এবং আসাদ শফিককে ঘড়ি খুলতে বাধ্য করেছিল। যদিও ওই ঘড়ি পরে আইনবহির্ভূত কিছু করার প্রমাণ মেলেনি।

ক্রিকেটারদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিচরণ কমানোর নির্দেশও দিয়েছে পিসিবি। বোর্ডের মতে, ওখানে গিয়ে সতীর্থদের প্রশংসা করাই কাজ হওয়া উচিত ক্রিকেটারদের। এসব শৃঙ্খলা রক্ষায় কোনো শিথিলতা চলবে না, এমন নির্দেশই নাকি দিয়েছেন পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি। আরব আমিরাতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সবশেষ ওয়ানডে সিরিজে কারও অনুমতি না নিয়ে টিম হোটেল ছেড়ে কনসার্ট দেখতে গিয়েছিলেন উমর আকমল। ওই ঘটনা থেকেই শিক্ষা নিয়ে পিসিবি ক্রিকেটারদের ওপর এমন কড়াকড়ি আরোপ করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম।